সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪ || ১২:১১:০৩ অপরাহ্ণ

বকেয়া বিদ্যুত বিল আদায় করতে গিয়ে মারধরে শিকার পাঁচ বিদ্যুৎ কর্মী

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকার সাভারে বকেয়া বিদ্যুত বিল আদায় করতে গিয়ে গ্রাহকদের মারধরে আহত হয়েছেন পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ পাঁচজন। মারধরের একটি ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পরেছে।
আহতরা হলেন- ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার রিপন আলী, প্রশাসনিক কর্মকর্তা গোলাম হোসেন, লাইন ম্যান মোঃ সানি হাসান, জয় সিকদার ও সৈকত রায়হান। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
বুধবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মারধরের ভিডিওটি ছড়িয়ে পরে। এ ঘটনায় রাতেই সাভার মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ শিমুলতলা জোনের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) আব্দুল মোত্তালিব হোসেন।
অভিযোগে হামলাকারী সাভারের জামসিং এলাকার মৃত ইব্রাহিম মিয়ার ছেলে মো. রিপন (৩০) তার ভাই মো. সেলিম (৩৮), বোন মনিরা বেগম (৩৪), মো. সুমন (৩২) তাদের মামা আব্দুর রশিদসহ (৪৮) অজ্ঞাত ৩/৪ জনকে আসামী করা হয়েছে।
সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পরা ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, মোটরসাইকেলে বসে থাকা অবস্থায় পল্লীবিদ্যুতের এক কর্মচারীকে বেশকয়েকজন মিলে অনবরত লাঠিসোটা দিয়ে ও কিল-ঘুষিসহ লাথি মারতে থাকেন। এক পর্যায়ে ওই কর্মচারীকে মারতে মারতে মাটিতে ফেলেও মারধর করতে দেখা যায় তাদের। বাশ দিয়ে বাড়ি দিতেও দেখা যাচ্ছে। তবে অন্য কোন কর্মকর্তা কিংবা কর্মচারীকে মারধর করতে দেখা যায়নি।
ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ শিমুলতলা জোনের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) আব্দুল মোত্তালিব হোসেন বলেন, জামসিং এলাকার বিদ্যুতের একটি মিটার রিপন ও সেলিমের মায়ের নামে। ওই গ্রাহকের ছয় মাসের বিদ্যুৎ বিল ১০ হাজার ৬০০টাকা বকেয়া রয়েছে। বুধবার বিকেলে পল্লীবিদ্যুতের কর্মকর্তা ও লাইন ম্যানসহ পাঁচজন সেই বকেয়া বিল আদায়ে তাদের বাড়িতে যায়। এসময় নিয়ম অনুযায়ী বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ না করায় বসতবাড়ির সংযোগে বিচ্ছিন্ন করতে গেলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এসময় পরিবারের সদস্যরা মিলে আমাদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এক পর্যায়ে লাঠিসোটা, লোহার রড ও ইটের টুকরো দিয়ে পল্লীবিদ্যুতের পাঁচজন স্টাফকে মারধর করে গুরুতর জখম করে। এসময় লাইনম্যান সানির পকেটে থাকা অন্য গ্রাহকের আদাকৃত ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা বিদ্যুত বিল ও তার মোবাইল ফোন ছিনিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
এবিষয়ে সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আকবর আলী খান বলেন, পল্লীবিদ্যুতের স্টাফদের মারধরের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর রাতেই মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে। এখন তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
এ বিষয়ে হামলাকারী পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে কেউ কোন কথা বলতে রাজী হয়নি।

খবরটি শেয়ার করুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *